Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রকল্প

প্রকল্পের নাম:

                 ১. চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ধান, গম ও পাট  বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প ।

              ২. চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তৈল ও পেঁয়াজ  বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প ।

              ৩. এগ্রিকালচার এক্সটেনশন কম্পোমেন্ট(এইসি) প্রকল্প।

              ৪. উপজে্লা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষন প্রকল্প।

              ৫. কৃষি যন্ত্রপাতি উদ্ভাবন ও সম্প্রসারণ প্রকল্প।

              ৬. বিএসএমএমইউ-কর্ণেল এফএফপি প্রকল্প।

              ৭. বিনা ময়মনসিংহ কর্তৃক স্থাপিত প্রদর্শনী।

              ৮. গম গবেষনা কেন্দ্র নশিপুর, দিনাজপুর কর্তৃক স্থাপিত গমের জাত প্রদর্শনী।

 

 

প্রকল্প সমুহের বিবরণ:

  

১. নাম: চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ধান, গম ও পাট বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প : 

 

               প্রকল্পের উদ্দেশ্য: আধুনিক জাতের বীজ উৎপাদনের মাধ্যমে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বীজের চাহিদা  পুরণসহ ফসলের   উৎপাদন 

                                   বৃদ্ধি করা।

              মেয়াদকাল: জুলাই ২০০৮ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত

              প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: জেলার সকল উপজেলা

              উপকারভোগীর সংখ্যা: ১১৫৭০ জন।

              প্রদর্শনীর সংখ্যা: ১১৫৭০ টি

              প্রশিক্ষণ:

                       কর্মকর্তা সংখ্যা: ৩৬০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-২০০টাকা)

                       কৃষক সংখ্যা: ১১৫৭০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-১২০)।

              অর্থের উৎস: জিওবি।

 

২. নাম: চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তৈল ও পেয়াজ বীজ উৎপাদন, সংরক্ষন ও বিতরণ প্রকল্প :

             প্রকল্পের উদ্দেশ্য: উন্নতমানের ডাল, তৈল ও পেয়াজ বীজ উৎপাদন, সংরক্ষন ও বিতরণের মাধ্যমে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বীজের

                                  চাহিদা পুরণসহ ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি করা।

             মেয়াদকাল: জুলাই ২০০৮ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত

             প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: জেলার সকল উপজেলা

             উপকারভোগীর সংখ্যা: ২৫১০ জন

             প্রদর্শনীর সংখ্যা: ২৫১০ টি

             প্রশিক্ষণ:

                     কর্মকর্তা সংখ্যা: ১৮০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা- ২০০ টাকা)

                     কৃষক সংখ্যা: ২৫১০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-১২০ টাকা)

             অর্থের উৎস: জিওবি

 

৩. নাম: এগ্রিকালচার এক্সটেনশন কম্পোমেন্ট(এইসি) প্রকল্প:

           প্রকল্পের উদ্দেশ্য: কৃষকদের কয়েক মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা, 

                                বিষমুক্ত ফসল উৎপাদন, উপকারী পোকামাকড় সংরক্ষণ ও কৃষকদের সংগঠিত করার মাধ্যমে কৃষি ক্লাব গঠন।

           মেয়াদকাল: আইপিএম - জুলাই ১৯৯৮ হতে চলমান।

                           আইসিএম - জুলাই  ২০০৭ হতে ২০১২ পর্যন্ত।

           প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সকল উপজেলা

           উপকারভোগীর সংখ্যা: ২৭৯৫০ জন

           কৃষক মাঠ স্কুলের সংখ্যা: আইপিএম- ৩৯৮ টি (প্রতিটি স্কুলে কৃষক ও কৃষাণী সংখ্যা- ২৫ জন)।

                                           আইসিএম- ৩৬০ টি (প্রতিটি স্কুলে কৃষক ও কৃষাণী সংখ্যার- ৫০ জন)।

           প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত কৃষক সংখ্যা: ১৬৯৬০ জন

           প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত কৃষাণীর সংখ্যা: ১০৯৯০জন

           ক্লাব সংখ্যা:

                        আইপিএম:৩১৯ টি

                        আইসিএম:২৯৭ টি

           অর্থের উৎস: জিওবি ও ডানিডা।

 

৪. নাম: উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষণ প্রকল্প:

         প্রকল্পের উদ্দেশ্য: কৃষকদের আধুনিক প্রযুক্তি হাতে কলমে শিক্ষাদানের মাধ্যমে কৃষি বিষয়ক জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধি।

         মেয়াদকাল: জুলাই ২০০৯ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত

         প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সদর, কাজিপুর ও শাহজাদপুর।

         উপকারভোগীর সংখ্যা: ১১,২৫০ জন

         প্রদর্শনীর সংখ্যা: ১৫ টি

         কৃষক প্রশিক্ষণ : ১১,২৫০ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-২০০+২০০=৪০০ টাকা)

         অর্থের উৎস: জিওবি

 

৫. নাম: কৃষি যন্রপাতি প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও সম্প্রসারণ প্রকল্প:

         প্রকল্পের উদ্দেশ্য: আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারে কৃষকদের উদ্বুদ্ধকরণ ও কমখরচে ফসল উৎপাদন বিষয়ে জ্ঞান বৃদ্ধিকরণ।

         মেয়াদকাল: জুলাই ২০১০ হতে জুন ২০১৫ পর্যন্ত

         প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: উল্লাপাড়া

         উপকারভোগীর সংখ্যা: ১৭৫২ জন 

         প্রদর্শনীর সংখ্যা: ১২ টি

         কৃষক প্রশিক্ষণ: ১৭৫২ জন (জনপ্রতি প্রশিক্ষণ ভাতা-২০০টাকা) 

         অর্থের উৎস: জিওবি

 

 

৬. বিএসএমএমইউ-কর্ণেল এফএফপি প্রকল্প:

        প্রকল্পের উদ্দেশ্য: ডলোডুন ব্যবহারের উপকারীতা সম্মধ্যে কৃষকদের হাতে কলমে শিক্ষাদান ও ফসলের আশানুরুপ ফলন বৃদ্ধি।

        মেয়াদকাল: জুলাই ২০১০ হতে জুন ২০১৩ পর্যন্ত।

        প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: রায়গঞ্জ, তাড়াশ ও উল্লাপাড়া।

        উপকারভোগীর সংখ্যা: ৬৬ জন

        প্রদর্শনীর সংখ্যা: ৬৬টি

        কৃষক প্রশিক্ষণ : ৬৬ জন

        অর্থের উৎস: বিএসএমএমইউ ও কর্ণেল এফএফপি।

 

৭. বিনা ময়মনসিংহ কর্তৃক স্থাপিত সরিষা প্রদর্শনী:

       প্রকল্পের উদ্দেশ্য: বিনা কর্তৃক উদ্ভাবিত নতুন জাত সমুহ সম্প্রসারণ।

       মেয়াদকাল: ২০০৮ হতে চলমান

       প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সদর, তাড়াশ, উল্লাপাড়া ও বেলকুচী।

       উপকারভোগীর সংখ্যা: ২৬৬ জন

       প্রদর্শনীর সংখ্যা: ২৬৬ টি

       কৃষক প্রশিক্ষণ: ২৬৬ জন

       অর্থের উৎস: বিনা ময়মনসিংহ।

 

৮. গম গবেষনা কেন্দ্র, নশিপুর, দিনাজপুর কর্তৃক স্থাপি্ত গম প্রদর্শনী:

       প্রকল্পের উদ্দেশ্য: সদর, কাজিপুর, শাহজাদপুর ও বেলকুচী।

       মেয়াদকাল: ২০০৯ হতে চলমান

       প্রকল্পভুক্ত উপজেলা: সদর, কাজিপুর, শাহজাদপুর ও বেলকুচী।

       প্রদর্শনীর সংখ্যা: ৫৮ টি

       কৃষক প্রশিক্ষণ : ৫৮ জন

       অর্থের উৎস: গম গবেষনা কেন্দ্র, নশিপুর, দিনাজপুর।